বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবসে হামলা, ফ্রান্স আঃ লীগের ২ কমিটির কার্যক্রম স্হগিত  

(Last Updated On: মার্চ ২৩, ২০১৭)

গত ১৭ ই মার্চ ফ্রান্সস্হ বাংলাদেশ দুতাবাসে বঙ্গবন্ধু জন্মদিবসে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের রাতের কমিটির সভাপতি মহসিন উদ্দিন খাঁন লিটনের নেতৃত্বে কিছু অতি উৎসাহী নেতা-কর্মী তাদের কে বৈধ কমিটি হিসেবে স্বীকৃতি দিতে দাবী জানিয়ে অরাজক পরিস্হিতি সৃস্টি করে রাষ্ট্রদূত কে অনুষ্ঠানে চালাতে বাধা প্রধান করে  । এক পর্যায়ে রাষ্ট্রদূত দ্রুত অনুষ্ঠান সমাপ্ত করতে বাধ্য হন । লাইভ ভিডিও ও অনলাইন পত্রিকার মাধ্যমে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়া আলম প্যারিসে সাংবাদিক ও দুতাবাসের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে অবগত হয়ে বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সরাপন্ন হলে তিনি জাতীয় পিতার জন্মদিন আওয়ামী লীগ কর্মীদের এমন হীন আচরনে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কার্যক্রম স্হগিত ঘোষনা করেন । পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম দূতাবাস কে জানান এখন থেকে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের বিষয়টি সরাসরি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ থেকে নিয়ন্ত্রিত হবে । মন্ত্রীর নির্দেশ পেয়েই দুতাবাসের প্রধান সংযুক্ত কর্মকর্তা হযরত আলী খাঁন দু গ্রুপের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে বিষয়টি অবহিত করেন । বিশেষ সুত্রে জানা যায় , ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে অনিয়মের বিষয় অবগত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ সভাপতি অনিল দাশ গুপ্তের প্রতি ভীষণভাবে ক্ষুব্ধ হন তারপরও তাকে কিছু না বলে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত সভাপতি এম এ কাশেম ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান মুজিবকে কাজ করতে নির্দেশ দেন , কিন্তু অনিল দাশ গুপ্ত প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কে পাশ কাটি মহসিন উদ্দিন খাঁন লিটন ও দিলওয়ার হোসেন কয়েছকে উসকানি দিয়ে কাজ করে যেতে বলেন । সর্বশেষ দুতাবাসে হাঙ্গামার পিছনে অনিল দাশ গুপ্তের ইন্ধনের বিষয়টি জানতে পেরে ফ্রান্স আওয়ামী লীগে ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের কতৃত্ব খর্ব করা হয় । বিষয় টি জানতে অনেক টাকা খরচ করে পদ পাওয়া নেতারা মুর্ছে পড়েন । উল্লেখ্য গত ৮ মে দু সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের সংঘর্ষে সম্মেলন পন্ড হলে নতুন করে সম্মেলন করে কমিটি করার কথা বলে রাত ৩ টায় ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কাউকে কিছু না জানিয়ে দু সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের একজন মহসিন উদ্দিন খাঁন লিটন কে সভাপতি ও দিলওয়ার হোসেন কয়েছ কে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষনা করে ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ভোরেই প্যারিস ত্যাগ করে । পরে সিনিয়র নেতৃবৃন্দ সাংবাদিক সম্মেলন করে কমিটি প্রত্যাখ্যান করে প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা হস্হক্ষেপ কামনা করে । এরপর তারা প্রধানমন্ত্রী সাথে সাক্ষাত্কার করে পুরো ঘটনা খুলে বললে তিনি নতুন করে সম্মেলন করার নির্দেশনা দেন । ঐ নির্দেশনা মোতাবেক ১৮ সেপ্টেম্বর ফ্রান্স আওয়ামী লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল ও সুন্দর সম্মেলনের মাধ্যমে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এম এ কাশেম কে সভাপতি ও মুজিবুর রহমান মুজিব কে সাধারণ সম্পাদক ঘোষনা করে কমিটি ঘোষনা করে । পরে ঢাকায় গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে দেখা করে কমিটির কপি কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদকের নিকট জমা দিয়ে আসে এবং প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে নতুন নেতৃবৃন্দ সালাম করে আসেন কিন্তু ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি অনিল দাশ গুপ্ত ব্যক্তিগত আক্রোশে এই কমিটি না মেনে লিটন -কয়েছ কমিটি কে উস্কানি দিতে থাকেন যার ফলশ্রুতিতে জাতির জনকের জন্মদিবসে অনুষ্ঠান পন্ড হয়  এবং ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কার্যক্রম স্হগিত হয় ।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.