দলীয় কোন্দল আর ভাইয়ের সাথে সেলফি মানে রাজনীতি না

(Last Updated On: December 22, 2017)

অঞ্জন রায় ঃ ৯০ এ গণদাবিতে ক্ষমতাচ্যূত বাংলাদেশের রাজনীতির ভাঁড় এরশাদ এইযে কেউ কি গ্যাস লাইন টানতে পারে। চেয়ারম্যানের এই কথার পর সবই পরিস্কার!

২০১৭ সালে কখনোই তরুন প্রজন্ম বা যারা স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে ছিলাম তাদের কাছে কোন রাজনীতির মডেল না। সে কারনেই জনগন মন খুলে এরশাদের দলকে ভোট দিয়েছে বলে আমি মনে করি না। রংপুরে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রতি অনাস্থা ও বিএনপি প্রার্থীর প্রতি জিততে পারবে না- সেই ভাবনাতেই বিএনপির চেয়ে তুলনামূলক শক্তিশালী জাতীয় পার্টির পক্ষে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধের সব ভোট এক হয়েছে- ফলাফলে জাতীয় পার্টির প্রার্থীর বিজয়।

এই নির্বাচনের প্রভাবে কখনোই জাতীয় পার্টি দেশের প্রধান জনপ্রিয় দল হয়ে উঠবে না। আওয়ামী লীগ- বিএনপির চেয়ে জাতীয় পার্টি অনেক পেছনে থাকা দলই থাকবে। তবে এই নির্বাচনের থেকে শিক্ষা নেয়ার রয়েছে।সেটি হলো- স্থানীয় দলীয় নেতাদের জনগনের পালসটা বুঝতে হবে। এমপি মন্ত্রীদের নামতে হবে সাধারনদের কাতারে। দলীয় কোন্দল আর ভাইয়ের সাথে সেলফি মানে রাজনীতি না- রাজনীতি মানে মানুষ। সেই মানুষ থেকে দূরে সরে থাকলে আর যাই হোক, মানুষ ব্যালটের মধ্যে দিয়ে জবাব দিতে ভোলে না।

ব্যাপক দৃশ্যমান উন্নয়নও রংপুরে বিজয় আনেনি- একজন রাজনৈতিক লুম্পেনের দল জিতেছে। হেরেছে সরকারী দল- কারন দৃশ্ব্যমান উন্নয়ন বিষয়ে মানুষকে সচেতন করার যে কাজটি- সেখানে ঘাটতি রয়েছে। রয়েছে দলের তৃণমূলে বিভাজন। যা শুধু বিপজ্জনকই না- এই বিপর্যয়েরও প্রধান কারন।

ফেইস বুক থেকে।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.