ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বে আসছেন ছাত্রীরা, আলোচনায় ৮ জন

(Last Updated On: জানুয়ারি ১৭, ২০১৮)

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৯ তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩১ মার্চ-১ এপ্রিল। জাতীয় সম্মেলনের মাধ্যমেই নতুন নেতৃত্বের হাতে উঠবে গৌরব-ঐতিহ্যের ধারক এ ছাত্র সংগঠনটির। তবে এবার ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ৬ জন নেতা।  এমন আভাস দিয়েছে আওয়ামী লীগের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র।

এদিকে নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ের ক্ষেত্রে নারীরা উঠে আসবেন বলেও আভাস পাওয়া গেছে।  অনুসন্ধান এবং ছাত্রলীগ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শীর্ষ ৫ নেতৃত্বের মধ্যে ২ টি নারী থাকতে পারে। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটিতেও আসতে পারে এমন চমক।

সূত্র আরো জানিয়েছে, দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের ৬ নেতা ইতিমধ্যে ৮ জন নারী নেত্রীর তালিকা করেছেন। তাদের বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। আলোচনায় উঠে আসা নারী ছাত্রলীগ নেত্রী মধ্যে রয়েছেন বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের মেয়ে অর্না জামান, সহ-সভাপতি চৈতালী হালদার চৈতী, তার গ্রামের বাড়ি খুলনা অঞ্চলে। এছাড়া রোকেয়া হলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির উপ আন্তর্জাতিক সম্পাদক ইশাত কাসফিয়া ইরা। তিনি কিশোরগঞ্জ অঞ্চল থেকে উঠে এসেছেন। উপ অর্থ সম্পাদক তিলোত্তমা শিকদারও আলোচনায় রয়েছেন। এছাড়া আলোচনায় আছেন কেন্দ্রীয় কমিটির উপ পরিবেশ সম্পাদক শেখ মারুফা নাবিলা, সহ-সম্পাদক সাবরিনা আক্তার। সাবরিনা রোকেয়া হলের সাবেক সভাপতি ছিলেন। এছাড়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা হলের সভাপতি বেনজীর হোসাইন নিশি, বিএম লিপি আক্তার যিনি রোকেয়া হল শাখার বর্তমান  সভাপতিও আলোচনায় রয়েছেন।

সূত্রটি জানিয়েছে, ছাত্রলীগের নতুন নেতা বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ৬ জনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান। তারা দুজনই ছাত্রলীগের ২ সাবেক সাধারণ সম্পাদক। আওয়ামী সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে ২ জনকেও বিশেষ এ দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা হলেন ৩ বারের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এবং এনামুল হক শামীম। উল্লেখ্য, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলে নেতা থাকার সময় তার ব্যক্তিগত কর্মকর্তা ছিলেন। এনামুল হক শামীম ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। এছাড়া আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন এবং কার্যনির্বাহী সদস্য মারুফা আক্তার পপিও ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ে মাঠ পর্যায়ে কাজ করবেন। দেলোয়ার হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং মারুফা আক্তার পপি সংগঠনটি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ছিলেন।

আওয়ামী লীগের এই ৬ নেতা মাঠ পর্যায়ে ছাত্রলীগের ত্যাগী, সৎ, নিষ্ঠাবান এবং নেতৃত্বদানে সক্ষম এমন নেতাদের বাছাই করে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে উপস্থাপন করবেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে তা তুলে ধরবেন বলেও জানিয়েছে সূত্র। এরপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবেন শেখ হাসিনা।

এদিকে, ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনকে রোববার সন্ধ্যায়ও গণভবনে ডেকে সফলভাবে নতুন সম্মেলন আয়োজন করার নির্দেশ দিয়েছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজ

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.