লন্ডনে হাইকমিশনে বিএনপির হামলা, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস ও ডেনমার্ক আ. লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

(Last Updated On: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮)

লন্ডনে বাংলাদেশ হাই কমিশনে বিএনপির সন্ত্রাসী  হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস ও ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ পৃথক পৃথক  বিবৃতিতে–

 ফ্রান্স আওয়ামী…

জিয়া অরফানেজ কেলেংকারী মামলার রায়কে কেন্দ্র করে লন্ডন দূতাবাসে বি এন পি, জামাত যে বর্বরোচীত হামলা চালায়, ফ্রান্স আওয়ামী লীগ সভাপতি বেনজির আহমেদ সেলিম ও সাধারন সম্পাদক মহসিন উদ্দিন খান লিটন  তার তীব্র প্রতিবাদ জানায়। বহির্বিশ্বে দূতাবাস গুলো দেশের স্বাধিনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। তাই এই হামলা বাংলাদেশের স্বাধিনতা ও সার্বভৌমত্বের উপরই আঘাত বলে ফ্রানস আওয়ামী লীগ মনে করে। আামরা এর তীব্র নিন্দা জানায়। 

নেদারল্যান্ডস আওয়ামী লীগ..

যুক্তরাজ্য বি এন পি সভাপতি এম এ মালেক কে হুশিয়ার করে দিচ্ছি আগামী দিনে তোমাকে যখন যেখানে, যে অবস্হায় পাওয়া যাবে প্রতিহত করা হবে, নেদারল্যান্ডস  আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে লন্ডনস্থ বাংলাদেশ  হাই কমিশন ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এতিমের টাকা আত্মসাৎ করার  দায়ে খালেদা জিয়ার বিচার কে কেন্দ্র করে জামাত-বিএনপি কর্তৃক লন্ডনস্থ বাংলাদেশ  হাই কমিশনে  হামলা ও ভাংচুরের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। প্রবাসে আমাদের মাতৃভূমির স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক দূতাবাসে হামলা চালিয়ে বিএনপি নামক সন্ত্রাসী সংগঠন বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ধ্বংসের অপচেষ্টা চালাচ্ছে।নেদারল্যান্ডস সহ ইউরোপের সকল দেশের মুজিবাদর্শের সৈনিকেরা ঐক্যবদ্ধভাবে নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। হামলা  ও সন্ত্রাস দিয়ে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন কে ধ্বংস করার অপচেষ্টা কখনো সফল হবে না। জঙ্গিবাদমুক্ত সোনার বাংলার বিরুদ্ধে দেশে ও প্রবাসে সক্রিয় সব অপশক্তির সকল অপতৎপরতা রুখে দাঁড়াতে মুজিবাদর্শের সৈনিকেরা ঐক্যবদ্ধ। আমরা দাবি জানাচ্ছি যে বিভিন্ন দেশে দূতাবাসে হামলা ও বিশৃঙ্খলাকারীদের চিহ্নিত করে কালো তালিকাভুক্ত করতে হবে,  বিচারের আওতায় আনতে হবে এবং দূতাবাস কর্তৃক এই সন্ত্রাসীদের সকল প্রকার  নাগরিক সুবিধা দেয়া বন্ধ করতে হবে।

কী দূর্ভাগা জাতি আমরা? রায় হচ্ছে বাংলাদেশে আর ভাংচুর, বিশৃঙ্খলা করেছে দেশের বাইরে বসে।তাও আবার জাতির জনকের ছবি পায়ে মাড়িয়ে! দলের নেতাকর্মীরা কতটুকু বর্বর, প্রতিহিংসা পরায়ন ও অশিক্ষিত হলে এই কাজ করতে পারে? তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা রইল তাদের প্রতি।

রুখো সন্ত্রাস; হটাও দানব,

মোঃ শাহাদাত হোসেন (তপন),সভাপতি

মুরাদ খান, সাধারন সম্পাদক

নেদারল্যান্ডস আওয়ামী লীগ।

 

ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ…

বিএনপি’র নেতাকর্মী  কতৃক সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার উপর থেকে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে স্মারকলিপি হস্তান্তরের নামে জোড় করে ঢুকে লন্ডন বাংলাদেশ হাইকমিশন ভবন ভাঙ্গচুর করার নিন্দা জানিয়েছে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ইকবাল হোসেন মিঠু ও সাধারণ সম্পাদক ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া।

সহিংস কর্মীরা এসময় ভবণের দেয়ালে টাঙ্গানো জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ভাঙ্গচুর ও হাইকমিশনের কর্মচারীকে শারিরীক ভাবে আঘাতও করে।

বিবৃতিতে বলেন ,বিদেশের মাটিতে এহেন ঘৃন্য কাজ যারা ঘটিয়েছে তাদের ঘৃনা ভরে নিন্দা জ্ঞাপন করি। দেশের ভাবমূর্তি যারা ক্ষুন্ন করে তারা আর যাই হোক দেশের জন্য মঙ্গলকারী না।বিএনপির সমর্থকরা আবারও প্রমান করলো তাদের দল একটি সন্ত্রাসী সংগঠন এবং এর নেতা কর্মীরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে  লিপ্ত।জাতির জন্য এরা অভিশাপ ।এতে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে এবং প্রবাসী বাঙ্গালীদের প্রতি নেতিবাচক ধারনা জন্ম দেবে।

ক্ষমতায় আসার জন্য যারা দেশের সম্পদ বিনষ্ট করতে পারে ক্ষমতায় গেলে তারা নিজেদের স্বার্থে  তারা দেশকে বিক্রিও করে  দিতে পারে।

সন্ত্রাস দূরনীতির আখরা হচ্ছে বিএনপির নামক সংগঠনটি  । চিন্নিত এইসব সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি ও দাবি করেন।

বিবৃতিতে আরো বলেন ,জঙ্গিবাদমুক্ত সোনার বাংলার বিরুদ্ধে দেশে ও প্রবাসে সক্রিয় সব অপশক্তির সকল অপতৎপরতা রুখে দাঁড়াতে মুজিবাদর্শের সৈনিকেরা ঐক্যবদ্ধ। আমরা দাবি জানাচ্ছি যে বিভিন্ন দেশে দূতাবাসে হামলা ও বিশৃঙ্খলাকারীদের চিহ্নিত করে কালো তালিকাভুক্ত করতে হবে, বিচারের আওতায় আনতে হবে এবং দূতাবাস কর্তৃক এই সন্ত্রাসীদের সকল প্রকার নাগরিক সুবিধা দেয়া বন্ধ করতে হবে।

কী দূর্ভাগা জাতি আমরা? রায় হচ্ছে বাংলাদেশে আর ভাংচুর, বিশৃঙ্খলা করছি দেশের বাইরে বসে। দলের নেতাকর্মীরা কতটুকু বর্বর, প্রতিহিংসা পরায়ন ও অশিক্ষিত হলে এই কাজ করতে পারে? তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। রুখো সন্ত্রাস; হটাও দানব।

বিবৃতিতে আরো সম্মতি জানান ,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম , সাংগঠনিক সম্পদক মোতালেব ভূঁইয়া , মোহাম্মদ ইউসুফ , হিল্লোল বড়ুয়া , পরিবেশ সম্পাদক ফাহমিদ আল মাহিদ , প্রচার সম্পাদক আহসান উজ্জামান ,  আবদুল  আল জাহিদ ,কবির আহমেদ  ,কোহিনুর আখতার মুকুল ,, শামসুল আলম চৌধুরী  ,আবু আশরাফ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ ,নিহারুল ইসলাম রুম্মান , মোহাম্মদ রাব্বী ,কচি মিয়া , ,সুমন দাশ  ,মাহফুজুর রহমান নয়ন এ কিউ এম হ্যাপী ,সবুজ মল্লিক , শাহীন মিয়া , মোকলেসুর রহমান , দেবাশিস বড়ুয়া মোহাম্মদ নাজমুল ,মোহাম্মদ আরাফাত ,শামসুদ্দিন  ইয়াকিন ,সৈয়দ পাভেল ,নাসির রানা ,প্রত্যয় সাহা , কাজী হামিদ , রাইসুল রাহান ,মোহাম্মদ শহীদ ,মিজানুর রহমান , সুমন বিশ্বাস ,কানাই  পোদ্দার ,মাইনুল হাসান ,হুমায়রা আখতার জাসিয়া সহ প্রমুখ।

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.