কিশোর প্রেমের ভয়ঙ্কর কিলিং মিশন

(Last Updated On: মার্চ ১৮, ২০১৮)

মাইসার সঙ্গে আগেই রওনকের সম্পর্ক ছিল। পরে রওনক মাইসার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে তুহু নামে আরেকটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে। কিন্তু তুহুর সঙ্গে সম্পর্ক ছিল অন্য একটি ছেলের। তুহুর ওই প্রেমিক রওনকের আগের প্রেমিকাকে ব্যবহার করে রওনককে হত্যার পরিকল্পনা করে। হত্যার জন্য বেছে নেওয়া হয় হোলি উৎসব। পরিকল্পনামতো রওনক হোলি উৎসবে এলে তাকে হত্যার মাধ্যমে ইতি ঘটে ত্রিভুজ প্রেমের গল্পের। এ ঘটনায় সোমবার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে এক নারীসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তারা হলেন— রিয়াজ আলম ওরফে ফারহান, ফাহিম আহম্মেদ ওরফে আব্রো, ইয়াসিন আলী, আল আমিন ওরফে ফারাবী খান ও লিজা আক্তার ওরফে মাইসা আলম। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহূত ছুরি। তবে মূল পরিকল্পনাকারী তুহুর দ্বিতীয় প্রেমিককে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

গতকাল দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) ইব্রাহিম খান জানান, মূলত রওনকের দ্বিতীয় প্রেমের সম্পর্ককে কেন্দ্র করে ওই ছেলে ও রওনকের মধ্যে ফেসবুকে কথাকাটাকাটি ও একজন অন্যজনকে হুমকিদানের ঘটনা ঘটে। তাই ওই ছেলে পরিকল্পনা করে হোলি উৎসবকে বেছে নেয় রওনককে খুন করার তাই মাইসাকে ব্যবহার করে রওনককে হোলি উৎসবে নিয়ে আসে ওই তরুণ।

ডিসি বলেন, পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী মাইসার কল পেয়ে ১ মার্চ রওনক কামরাঙ্গীরচরের বাসা থেকে কলাবাগানে অন্য বন্ধুদের সঙ্গে মিলিত হয়। রওনক পৌঁছার আগেই ওই তরুণ লক্ষ্মীবাজারে কয়েকজনকে নিয়ে পরিকল্পনা করে এবং ছুরি সরবরাহ করে। রওনক বন্ধুদের সঙ্গে শাঁখারী বাজার শনি মন্দিরের সামনে গেলে মাইসা তাকে একপাশে ডেকে নিয়ে যায়।

সেখানে ২০-২৫ জন মিলে তাকে মারধর করে। এদের মধ্যে কয়েকজন রওনককে ছুরিকাঘাত করে। গ্রেফতার ব্যক্তিদের মধ্যে ফারহান নিজেই ছুরিকাঘাত করেছে। মূল পরিকল্পনাকারীসহ জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তবে এই ঘটনার সঙ্গে রওনকের বর্তমান প্রেমিকার কোনো সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি।

এক প্রশ্নের উত্তরে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, রওনক, মাইসা, তুহু কিংবা এই বন্ধুমহলের কেউ কোনো নির্দিষ্ট এলাকা অথবা একই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করে না। তারা ফেসবুকের মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে পরিচিত হয় এবং নির্দিষ্ট সময়ে তারা একসঙ্গে দেখা করে। এদের মধ্যে কলেজছাত্র যেমন রয়েছে তেমনি ফলের দোকানিও আছে। উঠতি বয়সী তরুণ-তরুণীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের বিষয়ে তাদের পরিবারকে আরও সচেতন হতে হবে। প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার ভিক্টোরিয়া পার্ক গলিতে ছুরিকাঘাতে রওনককে খুন করে দুর্বৃত্তরা। ঘটনার দিনই নিহতের মা হেনা বেগম অজ্ঞাতদের আসামি করে কোতোয়ালি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

http://www.bd-pratidin.com

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.