জনসভায় ছাত্রলীগ নেত্রীদের চুলোচুলি, আহত সম্পাদক জাকিরসহ ১০ 

(Last Updated On: মার্চ ১৮, ২০১৮)

সোহ্‌রাওয়ার্দী উদ্যানে ৭ই মার্চের জনসভায় ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ ও গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় আহত হয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনসহ ছাত্রলীগের ১০  নেতা-কর্মী। একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মারামারি ঠেকাতে গিয়ে জাকির হোসাইনের মাথা ফাটে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত একাধিক নেতা-কর্মী জানান, সমাবেশে আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য দেওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে বসাকে কেন্দ্র করে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম এ সংগঠনের দুইটি কলেজের নেতা-কর্মীরা।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের এক সহ-সভাপতি জানান, ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা বসা নিয়ে পার্শ্ববর্তী গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের নেত্রীদের ওপর চড়াও হলে উভয় পক্ষের মধ্যে চুলটানাটানি শুরু হয়। এক পর্যায়ে গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের সভাপতি মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হলে কর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ইডেনে নেত্রীদের মারধর শুরু করে। পরে ইডেনের আহ্বায়ক তাসলিমা আক্তারও আহত হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মারামারিতে ৫/৬ জন আহত হওয়ার পর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেনের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে এ সময় ক্ষুদ্ধ কর্মীদের আঘাতে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির মাথায় আঘাত পান।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের অপর এক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জানান,  ইডেন কলেজ ও গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মারামারি থামিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সূর্যসেন হল ও মহানগর দক্ষিণের মারামারি থামাতে এলে কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন, শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ও দফতর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন আহত হন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

৩১ মার্চ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সম্মেলনের কারণে এ বিষয়ে কেউ মুখ খুলতে চাচ্ছে না বলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন।

সূত্র: সারাবাংলা

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.