অবৈধ সম্পর্ক, গাংনীতে প্রবাসীর স্ত্রী ও রাজমিস্ত্রীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

(Last Updated On: মে ৭, ২০১৮)

সাহাজুল সাজু :  মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার সাহারবাটি গ্রামের কলোনীপাড়ায় অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ তুলে প্রবাসীর স্ত্রী ও এক রাজমিস্ত্রীকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতিতা ওই মহিলা কলোনীপাড়ার মালদ্বীপ প্রবাসী আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী।

এবং নির্যাতিত রাজমিস্ত্রী গোপালগঞ্জ জেলার মকসুদপুর এলাকার মজিবুর রহমান মোল্লার ছেলে সম্রাট হোসেন।

শনিবার (৫ মে-২০১৮ ইং) মধ্যেরাত থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত তাদের একটি পিয়ারা গাছের সাথে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে গ্রামের কিছু লোকজন।

 

নির্যাতিতা ওই মহিলা জানান,কিছুদিন যাবত তাদের পাড়ার এক লম্পট কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তার কু-প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায়  রাতের আধারে এক রাজমিস্ত্রীকে আমার ঘরে তুলে দেয়। এসময় অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ তুলে সাহারবাটি গ্রামের গোলাম মোস্তফা,মনিরুল ইসলাম,রুবেল হোসেন ও মিলন আমাকে ও রাজমিস্ত্রীকে গাছের সাথে বেঁধে বেধড়ক মারধর করে।

 

নির্যাতিত রাজমিস্ত্রী সম্রাট হোসেন জানান,গত কয়েকমাস যাবত কলোনীপাড়ার একটি মসজিদ নির্মাণের কাজ করছি। শনিবার রাতে ওই পাড়ার আনারুল ইসলামের ছেলে কালু,মসলেম হোসেনের ছেলে গোলাম হোসেন ও তাছের আলীর ছেলে জাবারুল ইসলাম আমাকে জোরপূর্বক জানালা দিয়ে ওই মহিলার ঘরে ঢুকিয়ে দেয় । কিছুক্ষণ পর অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ তুলে আমাকে তারা মারতে থাকে।  তারা আমাকে ও প্রবাসীর স্ত্রীকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন চালায়।

এদিকে স্থানীয় গোলাম মোস্তফা,মনিরুল ইসলাম,রুবেল হোসেন ও মিলন হোসেন জানান,রাজমিস্ত্রী সম্রাট হোসেন ও প্রবাসীর স্ত্রী নিজেদের দোষ ঢাকার জন্য (গোপন করা) অবৈধ সম্পর্ক ও অনৈতিক কাজের বিষয়টি অস্বীকার করছে। তাদের নির্যাতনের অভিযোগটি ভিত্তিহীন।

গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম) জানান, উভয়পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে পাল্টাপাল্টি মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়াও  নির্যাতিতা মহিলা ও রাজমিস্ত্রীকে পুলিশ হেফাজতে নেয়ার পর তাদের আদালতে মাধ্যমে মেহেরপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.