চৌদ্দগ্রামে দেবরের সাথে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী

(Last Updated On: মে ৭, ২০১৮)

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়নের জুগিরকান্দি প্রকাশ খুন্তা গ্রামের বাচ্চু মিয়ার পুত্র সৌদি প্রবাসী মোঃ হাবিবুর রহমানের (৩৫) সাথে একই ইউনিয়নের শাহপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে হালিমা বেগমের সাথে সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়।

বিয়ের কয়েক বছর পর হালিমার সাথে তার দেবর সিএনজি চালক তাজুল ইসলামের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিষয়টি হাবিবুর রহমান তার মা বাবাকে জানান এবং ঘরোয়াভাবে মিমাংসা করা হয়। পরবর্তীতে উভয়ে আবারো গোপনে সম্পর্ক বজায় রাখে। এক পর্যায়ে হাবিবুর রহমান স্ত্রী হালিমার মোবাইল নিয়ে নেন- যেন যোগাযোগ রাখতে না পারে। তাজুল ইসলাম তার মায়ের মোবাইল দিয়ে যোগাযোগ রক্ষা করত বলে অভিযোগ করেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হালিমার এক চাচাত ভাই। ইতিমধ্যে হালিমা তাজুল অবৈধ সম্পর্কের কথা জানাজানি হয়ে গেলে গ্রাম্য সালিশ দরবারের ভয়ে গত ৩ মে বিকালে ডাক্তার দেখানোর নাম করে হালিমার শ্বশুর শ্বাশুড়ি তাজুল ইসলামকে দিয়ে হালিমা বেগমকে ডাক্তারের নিকট পাঠায় বলে অভিযোগ করেন হালিমার বাবা সিরাজুল ইসলাম।

সেই থেকে অদ্যবদী দেবর ভাবির আর খোঁজ মিলেনি বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। গৃহবধু হালিমার এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। তাছাড়া তাজুল ইসলামের স্ত্রী ছাড়াও দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। হালিমার বড় বোন রুবী জানান, ৪ মে তাজুল ইসলাম মোবাইল ফোনে বলে বেশী বাড়াবাড়ি করলে হালিমার লাশ পাবেন। এই ব্যপারে হালিমা বেগমের পিতা সিরাজুল ইসলাম বাদি হয়ে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করছেন। চৌদ্দগ্রাম থানার এ এস আই আবদুল কুদ্দুছ ঘঠনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জাগো কুমিল্লা.কম

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.