গুজবের বিষয়টি নওশাবা স্বীকার করেছেন

(Last Updated On: আগস্ট ১৯, ২০১৮)

র‍্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান জানিয়েছেন, শনিবার শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের ভাইরাল ভিডিওটি নওশাবা নামের এক ব্যক্তির ফেসবুক আইডি থেকে ছড়ানো হয়। পরে আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করি। পরে সনাক্ত করে উত্তরার একটি শ্যুটিং স্পট থেকে নওশাবাকে আটক করে র‍্যাব-১ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

শনিবার দিবাগত রাত একটার দিকে র‍্যাব-১ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নওশাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এ কথা জানান তিনি।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, রুদ্র নামের স্কুল পড়ুয়া এক ছেলের কাছ থেকে তথ্য পেয়ে তা ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন তিনি। গত ৩ আগস্ট শাহবাগে রুদ্রর সঙ্গে নওশাবার পরিচয় হয়। তারপর থেকে আন্দোলনের বিষয়ে উভয়ের মধ্যে যোগাযোগ হতো। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি গুজবের বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, তথ্যটি অন্যের কাছ থেকে শুনলেও নওশাবা এমনভাবে অভিনয় করে ফেসবুকে বিষয়টি জানিয়েছেন যে, ঘটনাস্থলের আশেপাশেই তিনি ছিলেন। তিনি অস্থির হয়ে ছোটাছুটি করছিলেন আর আশেপাশে তাকাচ্ছিলেন। আমরা তাকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করবো। তার বিরুদ্ধে একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

উল্লেখ্য, ধানমণ্ডির এই সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল সাইটে প্রচুর গুজব ছড়িয়েছে। যার একটিও সত্যি নয়। তবে, হামলায় বেশ কিছু শিক্ষার্থীর আহত হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.