ডেঙ্গু শব্দটার গায়ে এখন মৃত্যুর গন্ধ

(Last Updated On: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮)

অঞ্জন রায়: ৩ বছরের সৈমী নূর শেষ পর্যন্ত মারা গেল। ডেঙ্গুতে। আজ সকালে জানার পর থেকে স্তব্ধ হয়ে আছি। ভাবছি ওর মা বাবার কথা, ঘরময় ছড়ানো সন্তানের পোষাক-খেলনা। সৈমী নেই। আমাদের জয়িতা মাত্র কদিন আগে লড়াই করলো ডেঙ্গুর সাথে। লিয়াকত সিকদারের সন্তান ফিরে এসেছে সবার প্রার্থনায়। ডেঙ্গু শব্দটার গায়ে এখন মৃত্যুর গন্ধ।

আমাদের সিটি কর্পোরেশন কি করছে এডিস মশা দমনে? হঠাত হঠাত মশার অষুধের মেসিন, আর দু চারটে পোস্টার, টেলিভিশনে একটু বিজ্ঞাপন-এটুকুই কি যথেষ্ট? একজন নাগরিক যদি তার বাসার জন্য ট্যাক্স দিতে পারেন, তাহলে সেই বাসার দরকার নাই, বিল্ডিংএর আশেপাশে মশা নিধনের দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশনকে নিতে হবে। কেন মশা নিধনের অসুধ ছিটানোর পরেও মশা মরে না, কেন পাড়ায় পাড়ায় পরিচ্ছন্নতা অভিযান নয়? এর উত্তর মেয়র এবং সিটি কর্পোরেশনকে দিতে হবে।

শুধুমাত্র সিটি কর্পোরেশন ও নাগরিক সচেতনতাই রুখতে পারে ডেঙ্গু। আর সেই ক্ষেত্রে নেতৃত্ব নিতে হবে সিটি করর্পোরেশনকেই। যদি যেটা তারা না পারেন, ব্যর্থতা স্বীকার করুন।

মেয়র সাহেব, আপনি খুন হয়ে যাওয়া বাচ্চাটার মুখের সামনে গিয়ে দাড়ান, নিজেকে তার পিতা ভাবুন। আপনিও তো পিতা-মেয়র পরিচয় ভুলে পিতা হিসাবে সন্তান এবং সহনাগরিকদের বাঁচাতে ভুমিকা রাখুন।

ফেইস বুক থেকে।

Print Friendly

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.