স্পেনে আল আমীনের সবজি চাষে সাফল্য

(Last Updated On: অক্টোবর ২৩, ২০১৮)
কবির আল মাহমুদ :স্পেন, প্রবাসীদের কাছে দেশীয় খাবারের কদর থাকলেও আবহাওয়ার তারতম্যের কারণে প্রবাস জীবনে অনেকেই সে স্বাদ থেকে বঞ্চিত হন। আর সে কথা মাথায় রেখেই স্পেনের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী, শিল্পপতি ও ঢাকা ফ্রুটাসের চেয়ারম্যান আল আমীন মিয়া ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিস্তৃত মাঠ জুড়ে  সরকারি অনুমোদন নিয়ে শুরু করেছেন দেশীয় শাক সবজির ফলন। মাদ্রিদের  নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলে  পরীক্ষামূলক ভাবে  আবাদ করছেন বিভিন্ন ধরণের শাক সবজি।নিজেদের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও প্রতিবেশীদের মাঝেও তারা বিলিয়ে দিচ্ছেন পারিবারিক বাগানে চাষ করা টাটকা শাক সবজি।মাদ্রিদের শহরতলি টোলেডোর টেম্বলেকে গ্রামে প্রায় ১০ হাজার মিটার আবাদি জমি সরকারী অনুমোদন  নিয়ে দেশি লাউ, লাল শাক, মিষ্টি কুমড়া এবং স্পেনিশ কালাবাচীনের চাষ করেছেন তিনি।
 আবাদি জমি ভাড়া নিয়ে প্রাথমিকভাবে শখ করে দেশীয় সবজি চাষ করে এ মৌসুমে পেয়েছেন দেশীয় সব্জির স্বাদ।তবে বাজারে এসব সবজির চড়া মূল্য থাকায় আল আমিন মিয়ার এসব সবজি নিজের  চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি আত্মীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধব ও প্রতিবেশীদের সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে বিলিয়ে দিচ্ছেন  সরবরাহ করছেন টাটকা সবজি।গতকাল রবিবার (২১অক্টোবর)  আল আমীন মিয়া তার চাষকৃত এসব সবজি সংগ্রহের জন্য প্রবাসীদের নিয়ে যান তার চাষকৃত জমিতে এবং প্রবাসীরা যে যার চাহিদামত সংগ্রহ করেন সবজি। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সাবেক সাধারন সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, গ্রেটার ঢাকা এসোসিয়েশনের সভাপতি সোহেল ভূঁইয়া,গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ লুৎফুর রহমান, অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক কবির আল মাহমুদ,কমিউনিটি নেতা  এস এম মাসুদ, খলিলুর রহমান, মো ইকবাল,সাঈদ আনোয়ার  প্রমুখ।
বিদেশিদের  কাছে এসব সবজি  অপরিচিত হলেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের  মধ্যে তা ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। দেশীয় স্বাদ পেতে অনেকেই এসব সবজি সংগ্রহ করছেন আনন্দ মনে।
আল আমিন মিয়া বলেন, এখানে সার বা পানির তেমন সমস্যা নেই। মাটি খুবই উপযোগী সবজি ফলনের জন্য। তাই বাংলাদেশি যে কেউ ইচ্ছে করলে এ পেশায় আসতে পারেন। একদিকে যেমন  দেশীয় শাক-সবজির স্বাদ পাওয়া যাবে। অপরদিকে  অর্থনৈতিকভাবেও লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
সবজি সংগ্রহ করতে আসা কমিউনিটি ব্যাক্তিবর্গ  আল আমীন মিয়ার ভূয়সী  প্রশংসা করে বলেন, ব্যক্তিগত চাহিদা মিটিয়ে এসব শাক-সবজি বাণিজ্যিকভাবেও বাজারজাতের সম্ভাবনা রয়েছে।
Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.