এটাই সত্যি, ছাত্রলীগ এতিমদের সংগঠন : রাব্বানী

(Last Updated On: ডিসেম্বর ২৮, ২০১৮)

দরোজায় কড়া নাড়ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় ভোটের মাঠে রয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। নৌকার প্রাথীর্দের পক্ষে এই প্রচারণায় মিলছে না পকেট খরচ, নেতাকর্মীদের দাবি পূরণ করতে না পারায় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী হতাশ হয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে পোস্ট করা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

“দেশব্যাপী নির্বাচনী মাঠ জমিয়ে রেখেছে ছাত্রলীগ। প্রার্থীর পক্ষে মিটিং এ মাঠ ভরতে, মিছিলটা বড় করতে, শ্লোগান-শ্লোগানে জমিয়ে রাখতে, শত-শত বাইকের শো-ডাউন দিতে, ভোটারের দ্বারেদ্বারে ভোট চাইতে, এবং এসবের ফাঁকে প্রার্থী বা আশেপাশের বড় নেতাদের ব্যাক্তিগত প্রটোকল সব কিছুতেই আগে ডাক পরে ছাত্রলীগের।

মূলত, প্রতিটি আসনে ছাত্রলীগই নির্বাচনী পরিবেশ সরগরম রাখছে, এ নিয়ে কারো দ্বিমত থাকার কথা নয়। ১৬ জন বিভাগীয় সমন্বয়ক, ৩০০ আসনের সমন্বয়ক, সাথে প্রতি আসনে গড়ে ৭/৮ জন করে সদস্য অর্থাৎ সারাদেশে কেন্দ্র থেকেই ছাত্রলীগের প্রায় ৩০০০ নেতা-কর্মী বিগত ১০ দিন যাবত অক্লান্ত শ্রম দিচ্ছে দেশরত্ন শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এবং মহাজোট প্রার্থীদের পক্ষে।

প্রতি আসনে ১০ জন নেতাকর্মীর ১০ দিনের থাকা-খাওয়া বা হাতখরচ বাদ দিলাম, কেবল ঢাকা থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকায় যাবার গাড়ী ভাড়া ও লোকাল যাতায়াত ভাড়াটা দিতে গেলেও কমপক্ষে দশ হাজার টাকা দেয়া উচিত ছিলো। যার জন্য প্র‍য়োজন ছিলো ১০০০০×৩০০= ৩০,০০০০০ টাকা (৩০ লক্ষ)

দু’চারজন প্রার্থী ছাড়া অধিকাংশই ছাত্রলীগের জন্য সামান্য খরচের টাকাও দিচ্ছে না। মিনিমাম খরচের টাকার জন্য প্রতিদিনই ফোন, এসএমএস, ইনবক্সে নক পাচ্ছি। কি রিপ্লাই দিবো? কি বলবো ওদের?? ছাত্রলীগের জন্য এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় বা ব্যক্তিগত কোন ফান্ড থেকেই কোন অর্থ বরাদ্দ করা হয় নাই!

যে কয়েকজনকে যৎসামান্য কিছু দিয়েছি, সেটা বাপের ফান্ড থেকে। সবাইকে দিতে হলে তো বাপের জমিজমা বিক্রি করতে হবে! আমি দুঃখিত, সবার চাওয়া পূরণ করতে পারছিনা বলে। যতটা সম্ভব চেষ্টা করবো…

জানি, এই স্ট্যাটাসটি যথেষ্ট বিব্রতকর, কিন্তু এটাই সত্যি।

ছাত্রলীগ সত্যি এতিমের সংগঠন!”

(ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে)

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.