ভেনিসে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির আহবায়ক কমিটি

(Last Updated On: মার্চ ২৪, ২০১৯)

ইতালির ভেনিস বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির আহবায়ক এস.টি শাহাদাত,  সদস্য সচিব মেজবাহ

ঐক্য সৌহার্দ্য শান্তি প্রগতি এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দেশের অন্যতম তিন জেলা কুমিল্লা,চাঁদপুর ও

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিয়ে পর্যটন নগরী ভেনিসে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

রবিবার উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে বিপুল সংখ্যক ভেনিস প্রবাসী বৃহত্তর কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও চাঁদপুর জেলাবাসীর উপস্থিতিতে মেস্ত্রের স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির প্রথম সাধারণ সভার মাধ্যমে আহবায়ক ও উপদেষ্টা কমিটি ঘোষণা করা হয়।

 

সভায়সাবজেক্ট কমিটির অন্যতম সদস্য বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আইনজ্ঞ রেহান উদ্দিন দুলালের সভাপতিত্বে ও মাহবুব হোসেন এবং আবদুল মান্নানের যৌথ পরিচালনায় সভায় সর্বসম্মতিক্রমে বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতি ভেনিসের ৩৭ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির মধ্যে আহবায়ক শাহাদাত হোসেন (চাঁদপুর) ও যুগ্ম-আহবায়ক যথাক্রমে মিলন মোহাম্মদ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ও শরীফুল আলম মৃধাকে (কুমিল্লা) মনোনীত করা হয়। সভায়

সদস্য সচিব হিসেবে মেসবাহ উদ্দিন আলাল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া),সদস্য সচিব যথাক্রমে মাসুদুর রহমান (কুমিল্লা),আজাদ খান ( চাঁদপুর), কোষাধ্যক্ষ হিসাবে মাকসুদুর রহমান (কুমিল্লা), সহ কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইয়াসিন (ব্রাহ্মণবাড়িয়া), মোহাম্মদ জসীমকে (চাঁদপুর) দায়িত্ব দেয়া হয়। অন্যদের মধ্যে উপদেষ্টা হলেন যথাক্রমে রেহান উদ্দিন দুলাল,মাহাবুবুর রহমান, এ টি এম কামরুজ্জামান, সাইদ হোসাইন, আবদুল কুদ্দুছ চৌধুরী, ছিদ্দিকুর রহমান বকুল,রফিকুল ইসলাম, আবদুল মান্নান ও হুমায়ূন কবির।

 

আহবায়ক কমিটির সদস্যরা হলেন যথাক্রমে চাঁদপুর জেলা আশরাফ পাটোয়ারী, শাহিন পাটোয়ারী, কবির হোসেন, জাহিদুল ইসলাম, মোশাররফ হোসেন, সোহেল রানা,প্রফেসর মুন্না ও হারুন খাঁন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোঃ শাহআলম, শেখ আমানউল্লাহ, মোঃ হাবিব মিয়া, জিল্লাল মিয়া, ফয়সাল আহম্মেদ,ফখরুল ইসলাম দুলাল, রফিকুল ইসলাম ও মোঃ জামাল। কুমিল্লা জেলার নজরুল ইসলাম, নিমাল চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, রহিম জাবেদ মামুন,তুহিন রহমান, নাছির উদ্দিন,মামুনুর রশিদ, জামাল উদ্দিন, নুর আলম ভূইয়া, খালেদ রহমান, হাবিবুর রহমান ও আজিজুল রহমান।

সভায় আহবায়ক কমিটি আগামী ১২০ দিনের মধ্যে একটি সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি উপহার দেয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পরে এক প্রীতিভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.