এমপি বাহারের নির্দেশে আমাকে লক্ষ্য করে গুলি করেঃ এমপি সীমা

(Last Updated On: এপ্রিল ৭, ২০১৯)

কুমিল্লায় সাংসদ সীমাকে লক্ষ করে গুলি বর্ষণ , ২ পুলিশ সহ আহত৫  , সাংসদ বাহার গ্রুপের ৪৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা । কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহা উদ্দিন বাহারে নির্দেশে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম টুটুলের নেতৃত্বে  হামলা হয়েছে বলে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা অভিযোগ করেন ।

ভাগ্যের জোরে প্রানে বেঁচে গেলেন কুমিল্লা মহানগর আ ’ লীগ সহসভাপতি আঞ্জুম সুলতানা সীমা এমপি। শনিবার বিকেলে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী কোটেশ্বর গ্রামে প্রয়াত এক নেতার পরিবারের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে যাওয়ার সময় কুমিল্লা-০৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের নির্দেশে তার সন্ত্রাসী বাহিনী গুলি ও ককটেলের বিষ্ফোরণ ঘটায়। এসময় কমপক্ষে ৩ জন আহত হয়েছে। এমপি সীমার অভিযোগ ঘটনার সময় পুলিশ নিরব ভূমিকা পালন করেছিল। এঘটনায় নগরীর রানীর বাজার এলাকায় আঞ্জুম সুলতানা সীমা তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে সন্ধ্যা ৭টায় এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে এমপি সীমা বলেন, জেলার আদর্শ সদর উপজেলার পাঁচথুবী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রয়াত সাবেক আ’লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ন ম ওয়াহিদুর রহমান ও সাবেক সাধারন সম্পাদক মোঃ আলম খান (মেম্বার) এর স্মরণে স্থানীয় কোটেশ্বর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে পূর্ব নির্ধারিত মিলাদ, দোয়া ও শোকসভার অনুষ্ঠান ছিল। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি ও জেলা ১৪ দলের সমন্বয়ক, সাবেক কুমিল্লা জেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ এডভোকেট আফজল খান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু গত দু’দিন ধরেই কুমিল্লা সদর আসনের এমপি আ ক ম বাহা উদ্দিন বাহারের সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য এক সময়ের শিবির কর্মী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান টুটুল,স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বাহালুল, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা রিণ্টু, জিএস সহিদ, মোজাম্মেল গংরা কোটেশ্বর এলাকায় মহড়া দিয়ে আতঙ্ক ছড়ানো শুরু করে।  এঅবস্থায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে শনিবার সেখানে প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারী করে। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসক ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার ১৪৪ ধারা জারীর বিষয়টি ইঙ্গিত করে কোটেশ্বরের পূর্ব নির্ধারিত অনুষ্ঠান বাতিলের অনুরোধ করলে এমপি শনিবার বিকেলে প্রয়াত ওয়াহিদুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করার আগ্রহ করলে পুলিশের প্রহরায় বিকেল প্রায় ৫টা ১০ মিনিটে ফরিদ মেম্বারের বাড়ি কাছে পৌঁছলে এমপি বাহারের নির্দেশে উপজেলা চেয়ারম্যান টুটুলের নেতৃত্বে উল্লেখিত সন্ত্রাসীসহ অন্যান্যরা তাদের লক্ষ্য করে কমপক্ষে ২০টি ককটেল ও ৫০/৬০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। তিনি আরো বলেন, এসময় কোতয়ালী থানার ওসি আবু সালাম মিয়া, ওসি তদন্ত সালাহউদ্দিনসহ অন্যন্য পুলিশ সদস্যরা নিরবে দাড়িয়েছিল।

তাদের হামলায় শ্রমিক লীগ নেতা মোজাম্মেল হক বাবলু, ইউনুস মিয়া ও কবির রায়হান আহত হয়েছেন। এমপি সীমা খান বলেন, এসময় তিনি তার সাথে থাকা লোকজনদের নিয়ে নগরীতে ফিরে আসেন। তিনি আলো বলেন, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করলে আমি সেখানে যাই।

সংবাদ সম্মেলনে এফবিসিআই পরিচালক মাসুদ পারভেজ খান ইমরানসহ আওয়ামী লীগ , যুবলীগ , ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন ।

এদিকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের  সভাপতি মাইনুল হাসান দেশপ্রিয় নিউজকে জানান – কুমিল্লার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার , কোতয়ালী থানার ওসিকে লিখিত ভাবে জানিয়ে সদ্য প্রয়াত ইউপির ২ নেতার স্বরন সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

কুমিল্লা সদরের পাঁচখুবী এলাকায়, মুক্তিযোদ্ধা অহিদুর রহমানের স্মরন সভাকে কেন্দ্র করে গুলি বর্ষনের,২পুলিশ সদস্য সহ ৫ জন আহতের ঘটনায়, আজ রোববার বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে অজ্ঞাত ২৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.