যেসব পণ্যের দাম বাড়তে-কমতে পারে

(Last Updated On: জুন ১৪, ২০১৯)

প্রস্তাবিত বাজেটে বেশ কিছু পণ্যে আমদানি শুল্ক এবং সম্পূরক শুল্ক আরোপ ও বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। একইসঙ্গে কোনো পণ্য ও সেবায় ভ্যাটের হার বাড়ানোরও প্রস্তাব এসেছে। এসব প্রস্তাব কার্যকর হলে জনসাধারণকে বেশ কিছু পণ্য ও সেবা পেতে আগের তুলনায় বেশি মূল্য দিতে হবে। যেসব পণ্যে এ ধরনের প্রস্তাব এসেছে তার কিছু উল্লেখ করা হলো।

সয়াবিন, পাম অয়েল, সরিষা ও সানফ্লাওয়ার : প্লাস্টিক ও অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি তৈজসপত্র, সয়াবিন, পাম অয়েল, সরিষা ও সানফ্লাওয়ার অয়েলের ওপর স্থানীয় পর্যায়ে ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে। ফলে দাম বাড়তে পারে।

আইসক্রিম ও মোবাইল সিম : আইসক্রিমে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে। মোবাইল ফোনের সিম বা রিম কার্ডের সম্পূরক শুল্কও ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে বাড়তে পারে এসব পণ্যের দাম।

মধু ও অলিভ অয়েল : শুল্ক বাড়ানোয় আমদানি করা মধু ও অলিভ অয়েলের দাম বাড়তে পারে।

বিড়ি, সিগারেট, জর্দ্দা ও গুল : জনস্বাস্থ্য রক্ষা ও রাজস্ব আহরণ বাড়াতে বিড়ি, সিগারেট, জর্দ্দা ও গুলের ভিত্তিমূল্য বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে দাম বাড়তে পারে।

আমদানি করা গুড়ো দুধ : দেশীয় ডেইরি শিল্প ও দুগ্ধ খামারীদের সুরক্ষায় গুড়ো দুধ আমদানিতে রেয়াতি শুল্ক হার ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে আমদানি করা গুড়ো দুধের দাম বাড়তে পারে।

আমদানি করা চিনি : অপরিশোধিত চিনি আমদানির স্পেসিফিক ডিউটি প্রতি টনে এক হাজার টাকা এবং পরিশোধিত চিনি আমদানির স্পেসিফিক ডিউটি এক হাজার ৫০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি উভয় ধরনের চিনি আমদানির রেগুলেটরি ডিউটি ২০ থেকে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে আমদানি করা চিনির দাম বাড়তে পারে।

গাড়ির রেজিস্ট্রেশনসহ অন্যান্য খরচ : যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাক, থ্রি হুইলার, অ্যাম্বুলেন্স ও স্কুলবাস ব্যতীত অন্যান্য গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট, ফিটনেস সনদ ও মালিকানা সনদ বাবদ খরচ বাড়বে। কারণ এসব সেবায় পরিশোধিত ফির ওপর ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। চার্টার্ড বিমান ও হেলিকপ্টারে সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে।

আমদানি করা বৈদ্যুতিক গৃহস্থালি পণ্য : কাসাভা ও ভট্টা স্ট্রাচ, জিপসাম, পার্টিকেল বোর্ড, বৈদ্যুতিক গৃহস্থালি পণ্য আমদানিতে ২০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে আমদানি করা এসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে।

আমদানি করা মোটরসাইকেল : আমদানি করা মোটর সাইকেল ও এর টায়ার, সিএনজি বেবী ট্যাপি ও হালকা যানবাহনে ব্যবহূত রাবার টিউবের দাম বাড়তে পারে।

স্মার্ট ফোন : আমদানি শুল্ক্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করায় স্মার্ট ফোনের দাম বাড়তে পারে।

দাম কমতে পারে-

প্রস্তাবিত বাজেটে বেশ কিছু পণ্যে আমদানি, রেগুলেটরি ও সম্পূরক শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। আবার কিছু কিছু পণ্য ও সেবাকে ভ্যাটের আওতামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। প্রস্তাবগুলো কার্যকর হলে এসব পণ্য ও সেবা গ্রহণে জনগণকে আগের তুলনায় কম খরচ করতে হতে পারে। অর্থাৎ দাম কমতে পারে।

আসবাবপত্র, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার, ওয়াশিং মেশিন, মোবাইল ফোনসেট ও এলইডি টিভি: প্রস্তাবিত বাজেটে কৃষি যন্ত্রপাতি, আসবাবপত্র, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার, ওয়াশিং মেশিন, মোবাইল ফোনসেট, খেলনা, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, এলইডি টেলিভিশনকে কর অবকাশ সুবিধার অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। ফলে এসব পণ্যের দাম কমবে।

পাউরুটি, বিস্কুট ও কেক : ভ্যাট অব্যাহতি দেওয়ায় প্রতি কেজির দাম ১৫০ টাকা, এমন পাউরুটি, বনরুটি, হাতে তৈরি বিস্কুট ও কেকের দাম কমতে পারে। কৃষি যন্ত্রপাতি পাওয়ার রিপার, পাওয়ার টিলার, কম্বাইন্ড হার্ভেস্টার, লোপিস্ট পাম্প ও রোটারি টিলারের দামও কমতে পারে।

ক্যান্সারের ওষুধ ও মেডিকেল গ্যাস : কাঁচামাল আমদানিতে রেয়াতি সুবিধা দেওয়ায় ক্যান্সারের ওষুধের দাম কমবে। পাশাপাশি রেগুলেটরি ডিউটি কমানোয় মেডিকেল গ্যাসের (অক্সিজেন, কার্বন ডাইঅক্সাইড, নাইট্রোজেন) দামও কমবে।

স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত লিফট, ফ্রিজ ও এসি : উপকরণ আমদানিতে শুল্ক কমানো ও রেগুলেটরি ডিউটি মওকুফ করায় স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত লিফট, ফ্রিজ (রেফ্রিজারেটর), কম্প্রেসর, এয়ার কন্ডিশনার, মোটর ও পাদুকার দাম কমতে পারে।

স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত মোটরসাইকেল : স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত মোটরসাইকেল ও এর টায়ার, সিএনজি বেবিট্যাক্সি ও হালকা যানবাহনে ব্যবহৃত রাবার টিউবের দাম কমতে পারে।

বজ্রপাত প্রতিরক্ষার যন্ত্র : লাইটিনিং অ্যারেস্টারের আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে ৫ শতাংশের প্রস্তাব করায় এর দাম কমতে পারে। আমদানিতে রেয়াতি সুবিধা দেওয়ায় কমবে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রপাতির দাম।

স্বর্ণের গহনা : ব্যাগেজ রুলে স্বর্ণ আমদানির শুল্ক ভরিতে এক হাজার টাকা কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে স্বর্ণের গহনার দাম কমতে পারে।

পোলট্রি, ডেইরি ও মৎস্য খাতের খাদ্য ও ভ্যাকসিনের দাম কমতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.