আওয়ামী লীগ এমন হয়ে গেল কেমন করে !

(Last Updated On: August 18, 2019)

এড, আনিসুর রহমান মিঠু: জাতীয় শোক দিবসে অট্ট হাসিতে ফেটে পরেন মূল নেতার স্ত্রী ! হাসতে হাসতে কুজু হয়ে বসে যান ! জাতীয় শোক দিবস কি , শুধুই একটি কর্মসূচী মাত্র ??

যারা শ্রোতা তারাও যোগদেন সেই হাসিতে !! মনে হচ্ছিল যে বিয়ে বাড়ি , অথবা কোন বিজয় উৎসব । আওয়ামীলীগ এমন হয়ে গেল কেমন করে !!

আমরা যারা দুর্দিনে ছাত্র রাজনীতি করেছি , তারা দিনদিন বেমানান হয়ে যাচ্ছি রাজনীতিতে ! শোক দিবসে গ্রাম্য মানুষের মতো মন খারাপ থাকে আমাদের !

যারা পদ পদবী , ব্যবসা , পাওয়ার স্ট্যাশন , ব্যংক ইত্যাদির মালিক হয়ে গেছেন , তারা খুশীতে এতোই আটখানা যে , পনেরই আগষ্টেও তাদের আনন্দ উপচে পরে !!

এক সময় পনের আগষ্ট কাছাকাছি আসলেই টানটান উত্তেজনায় থাকতাম , মনে ভয় কাজ করতো নিজে বিপদে পরার অথবা কাছের কাউকে হারাবার !

পনেরই আগষ্ট মানে কয়েকটি দলের মিলিত আনন্দ উল্লাস , আর আমরা শোকার্তরা সেটা মেনে নিতামনা , তাই অবধারিত ছিল সংঘাত !

আমাদের কাঙ্গালী ভোজের হাড়ি পাতিল পেন্ডেল ভেংগে দিতো ওরা । কোথাও কোথাও খিচুরিতে বিষ দিয়ে দিত ।

ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমাদের উপর ঝাপিয়ে পড়তো জাতীয় পার্টি , ফ্রিডম পার্টি , ছাত্রদল এবং পুলিশ ! কোন কোন জেলায় শিবিরও সাথে যুক্ত হতো ।

এর ভেতরেও আমরা আমাদের কাজ করে যেতাম । তখন কোন দিন ক্ষমতায় আসবো এমন ভাবনাও আসতোনা মনে ।

এরশাদ পতনের পর , যখন খালেদাজিয়া সরকারে এলেন , তখন ইন্ডেমনিটি অর্ডিন্যান্স বাতিলের দাবীতো নতুন আন্দোলন শুরু করলাম । সে মিছিলেও পুলিশ আমাদের পিটাতো

তখন আমাদের ভাবনা ছিল , যদি বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়ে যায় , তাঁকে জাতির পিতা স্বীকৃতি দেয়া হয় , সব দল তাঁর জন্মদিন মৃত্যুদিন পালন করে সেদিন রাজনীতি ছেড়ে দেব ।

দুর্ভাগ্যজনক ভাবে সে দিন আজও আসেনি । খুব সহসায় সেদিন আসবে বলেও মনে হচ্ছেনা ।

তার চাইতেও বড় দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে , সয়ং বঙ্গবন্ধুর প্রতিই যাদের মমতা নেই তাদের ছাড়া যেন দল অচল ! তারা খুবই গুরুত্তপূর্ণ , তারা অনিবার্য !

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের শোক সভায় আনন্দের ফোয়ারা দেখে খবর নিলাম দর্শক সারির লোক গুলো কারা ? জানলাম ওরা গঠনতন্ত্র লংঘন করে সদ্য কমিটি যায়গা পাওয়া সৌভাগ্যবানেরা !

যারা চার পাচ বছর আগেও বিএনপি কিংবা জামাত ছিল ! নিজের অবস্থান সুদৃঢ করার জন্য এদের দলীয় পদ বিতরন করেছেন কেউ একজন !

একই অবস্থা ওয়াশিংটন এলাকাতেও , অন্য দল থেকে এসে বিভিন্ন অংগ সংগঠনের সভাপতি ! মূল দলের নেতাও তাদের পরামর্শ নিয়ে দল চালান !

বাংলাদেশে যা হচ্ছে , বিদেশেও তা-ই হবে , এটাইতো স্বাভাবিক ! আমি মোটেও আশ্চর্য হইনি । তবে ব্যথিত হয়েছি ভীষন । কোন দিকে যাচ্ছি আমরা ! নীতি আদর্শ কিছুই কি থাকবেনা ??

গত দশ বছরে আওয়ামীলীগ ও অংগ সংগঠনে বাম্পার ফলন হয়েছে , চারিদিকে থৈথৈ করছে আওয়ামীলীগ ! উপচে পরছে নেতা !!

 

ছাত্রলীগ , যুবলীগ ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ধংস হয়েছে ভেতর থেকে , আদর্শিক ভাবে । কমিটির বিশালত্বের কারনে ! একেক কমিটিতে তিনশ চারশ লোক !

তবে দেশে আওয়ামীলীগের কমিটির আকার বড় করার সাহস কেউ কোন জেলায় দেখায়নি , যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ তাও করে দেখিয়েছে । আশা করি এর ঢেঊ দেশেও লাগবে !

 

নবাগত এই অনিবার্য সম্মানিত নেতারা জানেনা , বঙ্গবন্ধুর মায়ের নাম কি ? বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন কবে ? ছয় দফা কি ? গন অভ্যুত্থান কেন কবে হয়েছিল ? জেল খানায় নিহত নেতাদের  নাম কি ? বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কি জিনিস ??

 

দেশে এবং বিদেশে আদর্শহীন এই নেতার সমষ্টি আসলে অর্থহীন জটলা ছাড়া কিছু নয় ।

 

মোস্তাক , ফারুক , রশীদরা বঙ্গবন্ধুর যে খতি করতে পারেনি এরা তা করে দেখাবে ! যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের ঈদের আনন্দের মতো শোক সভা দেখে এমনটিই আমার মনে হচ্ছে বারবার ।

 

এড, আনিসুর রহমান মিঠু

সহ সভাপতি

মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামীলীগ

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.