বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে যৌন সম্পর্ক থাকার দাবি মার্কিন মডেলের

(Last Updated On: September 29, 2019)

জেনিফার আরকুরি তার বন্ধুদের জানান, বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন লন্ডনের মেয়র থাকাকালে তাদের মধ্যে যৌন সম্পর্ক ছিলো। তবে বরিস দাবি করেছেন জেনিফারের সঙ্গে তিনি সবসময়ই দূরত্বের সম্পর্ক বজায় রেখেছেন। বরিসের দাবি সাবেক মডেল এবং বর্তমানে উদ্যোক্তো এই নারীর সঙ্গে লন্ডনের মেয়র হিসেবে যে চুক্তি হয়েছিলো তার জন্য যৌন সম্পর্কের কোনো প্রয়োজন ছিলো না।-ডেইলি মেইল

কয়েকদিন আগে থেকেই জেনিফার তার বন্ধুদের বলে বেড়াচ্ছিলেন তার সঙ্গে বরিসের যৌন সম্পর্ক ছিলো। বিবিসির এক অনুষ্ঠানে এসে এই বিষয়ে বরিস বলেন, ‘তার সঙ্গে আমার যেই সম্পর্ক ছিলো তা হলো কোড অব কন্ডাক্টের। আমাদের সম্পর্ক ছিলো খুবই আনুষ্ঠানিক। আমার এই বিষয়ে বলার কিছু নেই। লন্ডনের মেয়র হিসেবে আমি যা করেছি সেগুলো গর্ব করার মতোই। সানডে টাইমসকে জেনিফারের এক বান্ধবী যিনি কনজারভেটিভ পার্টির কর্মী সানডে টাইমসে বলেনে, ‘সে আমাকে জানিয়েছিলো তারা একই বিছানা ভাগাভাগি করছে।’ পত্রিকাটি দাবি করে, জেনিফার নিজের অন্তত ৪ বন্ধুকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিবিসির অনুষ্ঠানটিতে নিজের বর্তমান সঙ্গীনি ক্যারি সিমন্ডসকে নিয়ে আসেন বরিস জনসন। এদিকে বরিসের কিছু বিরোধী বলছেন, যৌন সম্পর্কের বিনিময়ে জেনিফারকে বাণিজ্য সুবিধা দিয়ে থাকতে পারেন জনসন। তাই তারা এই ঘটনার পুলিশি তদন্ত দাবি করেছেন। ব্যক্তিজীবনে ৬ সন্তানের জনক বরিস জনসন। এর আগে ২টি বিয়ে করলেও এখন বান্ধবী সিমন্ডসের সঙ্গে বসবাস করছেন। তবে ভারতীয় বংশোদ্ভূত স্ত্রী ম্যারিনা হুইলারের সঙ্গে এখনও তার তালাক হয়নি।

সূত্র- আমাদের সময়

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.