আবরার হত্যার ভুয়া ভিডিও ভাইরাল

(Last Updated On: October 27, 2019)

যুগান্তর ঃ আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে যখন বুয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশ তোলপাড় তখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ল একটি ভিডিও।

ভিডিওটিকে আবরার হত্যাকাণ্ডের বলে প্রচার করছেন অনেকে।

১ মিনিট ৫ সেকেন্ডের সেই ভিডিওতে দেখা গেছে, এক যুবকের চার হাত-পা ধরে শূন্যে ঝুলিয়ে রেখেছেন চার যুবক। তাকে নির্মমভাবে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটাচ্ছেন আরও দুই যুবক। আরও কয়েকজন যুবক তা দেখছেন। আক্রান্ত যুবকের মুখমণ্ডল দেখা যাচ্ছে না। উপর্যুপুরি আঘাতে জর্জরিত অজ্ঞাত সেই যুবকের আকুতি-মিনতি ও অষ্পষ্ট চিৎকার শোনা যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সারাদিনই অনেকের ফেসুবক টাইমলাইলে ঘুরপাক খাচ্ছে যুবককে পেটানোর নির্মম সেই ভিডিও।

তারা ভিডিওটি পোস্ট করে বলছেন, এটাই আবরারকে প্রহারের ভিডিও।

ভিডিওর শিরোনামে লেখা হয়েছে, ‘আবরার ফরহাদকে খুনিরা যে ভাবে খুন করল। ’

না জেনে বুঝে সেই ভিডিও শেয়ারসহ নানা মন্তব্যে মেতে উঠেছেন কেউ কেউ।

জানা গেছে, ভিডিওটি আবরারকে পেটানোর ভিডিও নয়। এটি ৪ বছর আগে ভারতের একটি এলাকায় ঘটে যাওয়া কোনো ঘটনা।

ভিডিওটি প্রথম পোস্ট করে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ভিডিও শেয়ার ওয়েবসাইট ‘লাইভ লীক। যুদ্ধ, বিক্ষোভ ও রাজনৈতিক সহিংসতার লাইভ কোনো ভিডিওফুটেজ ইন্টারনেটে আপলোড করে এই ওয়বসাইটটি।

যুবককে পেটানোর সেই ভিডিওটি গত চার বছর আগে লাইভ লীক তাদের ওয়েবসাইটে পোস্ট করে এর শিরোনাম দেয় ‘cheating man gets a public caning’

তারা জানায়, ভারতের কোনো একটি এলাকায় প্রতারণা করার অভিযোগে দিনদুপুরে ওই যুবককে এভাবে শাস্তি দেয় এলাকাবাসী।

একই ভিডিও পরে শেয়ার করে আর্ন্তজাতিক ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট ডেইলি মোশন।

এরপরই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়।

তবে গত রোববার (৬ অক্টোবর) রাতে বুয়েটের শের-ই বাংলা হলে ইইই বিভাগের ছাত্র আবরার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে এই ভিডিওর কোনোই যোগসূত্রিতা নেই।

আবরার হত্যাকাণ্ডের পরপরই পুরনো এই ভিডিওটি আবরার ফরহাদকে খুনিরা যে ভাবে খুন করল শিরোনামে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যে সচেতনরা এই ভিডিওটি আবরারের নাম দিয়ে শেয়ার না করতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় অনেকে মত দিয়েছেন, কুচক্রিমহল আবরার হত্যাকাণ্ডকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এ ভিডিও ছড়িয়েছে। এ থেকে সবাইকে সাবধান হওয়ার আহ্বান জানান তারা।

প্রসঙ্গত শিবির সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ আবরার ফাহাদকে।

ফেসবুকে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তির প্রতিবাদে নিজের মত জানিয়েছিলেন আবরার ফাহাদ।

সেই স্ট্যাটাসের জেরে তাকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করে বুয়েটের একই হলের বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী।

এখন পর্যন্ত এমনটাই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের গঠিত ২ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি।

শনিবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন আবরার।

এর জের ধরে রোববার রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

চার বছর আগে লাইভ লীকে শেয়ার করা সেই ভিডিওটি দেখুন-

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.