যুবলীগের জাতীয় কংগ্রেস: আলোচনায় 8 সাবেক ছাত্রনেতা

(Last Updated On: November 23, 2019)
বিশেষ প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের আসন্ন জাতীয় কংগ্রেসে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী (১৯৯২-৯৪)ও সাবেক সাধরন সম্পাদক ইকবালুর রহিম(১৯৯২-৯৪) জুটি অথবা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি(১৯৯৮-২০০২) বাহাদুর বেপারী ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক (২০০২-২০০৬)জাকির হোসেন মারুফ( জুটি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নেতৃত্বে এলে পাল্টে যাবে যুবলীগের ভাবমূর্তি।
আগামী ২০ ও২১ শে ডিসেম্বর ২০১৯ইং তারিখে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন।আওয়ামী লীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নির্সেশ দিয়েয়ছেন সম্মেলনের পূর্বেই সংগঠনের মেয়াদোত্তীর্ন সকলঅঙ্গ সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত করা।এলক্ষ্যেই ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের চার সহয়যোগী সংগঠনের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারিত হয়েছে।আগামী ২৩শে নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন তথা জাতীয় কংগ্রেস।উক্ত জাতীয় কংগ্রেসেই নির্ধারিত হবে যুবলীগের পরবর্তী নেতৃত্ব।সর্বশেষ জাতীয় কংগ্রস অনুষ্ঠিত হয় ২০১২ সালে। সাম্প্রতিককালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রীয়ভাবে যে শুদ্ধি অভিযানের নির্দেশ দিয়েছেন তাতে দেখা যায় আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের একটা বড় অংশ দুর্নীতি ও সামাজিক অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়েছে।বিশেষ করে যুবলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব থেকে তৃণমুল পর্যন্ত কমিটি বানিজ,ক্যাসিনো কেলেংকারি,টেন্ডারবাজি,চাঁদাবাজি,দখলদারি,সন্তাসেী কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ায় সংগঠনটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছে। এমতাবস্থায় সকল অনিয়ম ও বিশৃঙ্খার বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কঠোর অবসৃথান গ্রহণ করেছেন।যুবলীগকে ঢেলে সাজাতে বলেছেন।সংগঠনটির বয়োবৃদ্ধ ও আকন্ঠ দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়া সদস্যদের দল থেকে বহিষ্কার করাসহ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের নিদেশ দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই তিনি ঘোষনা দিয়েছেন য়ুবলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতৃত্বে ছাত্রলীগ ব্যাকগ্রাউন্ত ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে আসা হবে।যুবলীগের নেতৃবৃন্দের বয়সসীমা নিয়েও আলোচনা রয়েছে।যুবলীগের দুর্বৃত্তায়িত রাজনীতি থেকে সংগঠনটিকে বাঁচাতে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।প্রথমত সংগঠনের নেতৃ্ত্বে নিয়ে আসা হবে সৎ ও আদর্শবান নেতাদের।সেক্ষেতর্ সাবেক ছাত্রনেতাদের মধ্য থেকেও যারা গ্রহণযোগ্য, ব্যকৃতিত্বসম্পন্ন,বদনাম নেই এমনছাত্রনেতাদের তালিকা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের আসন্ন জাতীয় কংগ্রেসে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী (১৯৯২-৯৪)ও সাবেক সাধরন সম্পাদক ইকবালুর রহিম(১৯৯২-৯৪), সাবেক সভাপতি(১৯৯৮-২০০২) বাহাদুর বেপারী ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক (২০০২-২০০৬)জাকির হোসেন মারুফ( এর নাম আলোচিত হচ্ছে।অনেকেই মনে করেন আলোচিত এধরনের ব্যক্তিবর্গ নেতৃত্বে এলে পাল্টে যাবে যুবলীগের ভাবমূর্তি। এছাড়াও যুবলীগ সংগঠনেও যারা ভালো আছেন তাঁদের ম্য থেকেও আসতে পার নয়া নেতৃত্ব।

 

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.