একজন কর্মীপ্রাণ অনিল দাশ ও মৃত্যুশয্যা বেনজির সেলিম

(Last Updated On: November 2, 2019)

খালেদ গোলাম কিবরিয়া: অনিল দাশ গুপ্ত ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের এমন এক নক্ষত্র যার তুলনা তিনি নিজেই , মানুষ মাত্রই কিছুটা ভূল হবেই তা এড়িয়ে তিনি নিজেকে কর্মীদের কাছে নিষ্ঠা ও সততার আদর্শ হিসেবে পরিচিত করতে সক্ষম হয়েছেন ।

যখন বঙ্গবন্ধু পরিবারের সাথে কেউ কথা বলতে ভয় করত তখন তিনি নির্ভয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন । এত দিন তাঁর একটা পরিচয় ছিল তিনি ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি , এখন প্রধান উপদেষ্টা । আসলে কোন পদই তা কাছে মূখ্য নয় । তিনি সব কিছু ছাপিয়ে কর্মীদের কাছেতো বটেই নেত্রীর কাছেও দাদা হিসেবে পরিচিত ও মান্যবর ছিলেন । বয়সের ভারে নুজ্য কিন্তু প্রধান্ত্রমন্ত্রী ইউরোপের কোথায় আসলে এখনও ছুটে যান কর্মীদের একটু  স্নেহ দিতে ও নেত্রীর একটু মমত্ব পেতে । রাজনীতিতে মতবিরোধ থাকবেই কিন্তু তা হতে হবে পারস্পরিক শ্রদ্ধার ভিত্তিতে এই নীতিতে অনিল দাশ গুপ্ত সব সময় শ্রদ্ধাশীল ।

বছর তিনেক আগে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে  অনিল দাশ গুপ্ত সাথে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সিনিয়ার নেতৃবৃন্দের মতোবিরোধ ও সমস্যার সৃষ্টি হয় । কিন্তু তাদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ সব সময় অটুট ছিল । যদিও তৎকালীন ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ কে ভাঙ্গতে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সিনিয়ার নেতাদের একটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা ছিল । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে এসে বেনজির আহমেদ সেলিমকে সভাপতি করে নতুন কমিটি করে দিয়ে যান । এরপর ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগেরও নতুন কমিটি দ্বায়িত্ব গ্রহন করেন । অনিল দাশ গুপ্ত অসুস্হ হলেও তার দীর্ঘ দিনের কর্মীদের প্রায়শ খোঁজ খবর নেন । তেমনি গত বুধ বার তাঁর দীর্ঘদিনে সহযোদ্ধা বেনজির আহমদ সেলিম অসুস্হ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি এই খবর দেশপ্রিয় খবরের মাধ্যমে জেনে ব্যাকুল হয়ে  ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সিনিয়ার সহসভাপতি এম এ কাশেম ও অন্যতম সহসভাপতি সৈয়দ ফয়সল ইকবাল হাসেমী সহ কয়েক জন নেতৃবৃন্দ এবং সাংবাদিক ফারুক নেওয়াজ খাঁন ও এই প্রতিধিনিকে ফোন করে খোঁজ খবর নেন । দ্বায়িত্ব ছাড়লেও তার দীর্ঘদিনের সহযোদ্ধার প্রতি মমত্ব এখনো বিন্দু মাত্র কমে নি ।

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.