ইতালিতে কঠোর অর্থনৈতিক আইন ২০২০ জারি

(Last Updated On: November 8, 2019)
পশ্চিম ইউরোপের শিল্প উন্নত দেশ ইতালি। প্রায় তিন লাখ বাংলাদেশি বসবাস করেন ইতালিতে। সরকারি হিসেবে ইতিমধ্যে প্রায় চল্লিশ হাজার ছোট বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক বাংলাদেশিরা। গত ২৭ শে অক্টোবর ইতালিয়ান সরকার একটি বিশেষ অধ্যাদেশ পাস করে। এই অর্থনৈতিক সম্পর্কিত আইনটি ডেকরেত ফিসকালে ‘২০২০’ নামে পরিচিত। ইতালিতে বসবাসরত দেশি-বিদেশি ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান,সকল রকম অর্থনৈতিক দায় হতে মুক্তির জন্য, যেসকল কৌশল ও চালাকি অতীতে করেছেন, তাদেরকে আইনের আওতায় এনে, অর্থ উদ্ধার ও শাস্তির ব্যবস্থা করা, এই আইনের উদ্দেশ্য। আইনটিতে ৬০ ধারা রয়েছে।
 
এই আইনের রয়েছে দুটি ভয়াবহ দিক। যথা- ক্রোকের মাধ্যমে দ্রুত অর্থ উদ্ধার। বাড়ি, গাড়ি ব্যবসা বিক্রি করে ও ব্যাংক হতে ইকু ইতালিয়ার মাধ্যমে টাকা ক্রোক করে নিয়ে যাওয়া। এবং কোন রকমে টাকা উদ্ধার করতে না পারলে, ব্যক্তিকে স্ব-শ্রম কারা দণ্ডের মাধ্যমে টাকা উপার্জন করিয়ে, তাহতে অর্থ আদায় করা। এইসকল অর্থের প্রায় সবটাই সরকার পাওনা আছেন ব্যবসায়িক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নিকট। এর পরিমাণ প্রায় ত্রিশ বিলিয়ন ইউরো। যারা ট্যাক্স, ভ্যাট ও নিজের এবং কর্মচারিদের পেনশনের জন্য অর্থ জমা করেননি।
 
এক শ্রেণির ব্যবসায়িক আছেন যারা প্রতি তিন বছর পর পর ব্যবসার মালিকানা পরিবর্তন করেন। ইতালির সরকার প্রথম তিন বছর নতুন ব্যবসা ভালো করে শুরু করতে সহায়তা হিসেবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ট্যাক্সের আওতায় শীতল রাখেন। কিন্তু চতুর্থ বছর হতে সমন্বয় করে সব পরিশোধ করতে হয়।
 
অনেক ব্যবসায়িরা প্রথমে নিজের নামে, তারপর স্ত্রীর নামে, পরে সন্তানের নামে, এ পথ অনুসরণ করে ট্যাক্স ও ভ্যাট না পরিশোধ করে, বছরের পর বছর ব্যবসা পরিচালনা করেন। অবশেষে ব্যবসা বিক্রি করে দেন। কেউ কেউ ব্যবসা দেউলিয়া ঘোষণা করেন। কিন্তু সরকার চাইলে সকলের তথ্য ‘প্রত্যেকের কটিসি ফিসকালের মাধ্যমে ও প্রার্থিতা ইভার মাধ্যমে সহজেই উদ্ধার করতে পারেন। এই ২০২০ অধ্যাদেশটি বাংলাদেশীসহ ইতালিয়ান দেশি-বিদেশি অনেক ব্যবসায়িকের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
 
মানবাধিকারের দেশ ইতালির আইনে সহজে দেনা পরিশোধ করার ব্যবস্থা আছে। প্রত্যেকের ‘কমারসালিস্ট’ (ব্যবসায়িক হিসাব রক্ষক) এর পরামর্শ গ্রহণ করার মাধ্যমে সমস্যা হতে উওরণের একমাত্র উপায়।
সূত্র – সময় সংবাদ ।
Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.