বাংলাদেশ নিয়ে বিভ্রান্তিকর পোস্ট : নিঃশর্ত ক্ষমা চাইল অ্যামনেস্টি

(Last Updated On: January 15, 2020)

সিরিয়ার ধ্বংসযজ্ঞের ছবি দিয়ে বাংলাদেশের নাম ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্টের জন্য অবশেষে ক্ষমা চেয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সংস্থাটির ফেসবুক পাতায় নতুন এক পোস্টে বলা হয়, সংঘাত ও যুদ্ধময় দেশ, যেখানে মানুষ আক্রমণ, সংঘাত ও মৃত্যুর মুখোমুখি হচ্ছে- ফেসবুক বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করায় ক্ষমা চাচ্ছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

আমরা এই ভুলের জন্য বাংলাদেশের জনগণের এবং যারা এর মাধ্যমে মর্মাহত হয়েছেন, তাদের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি।

গেলো শুক্রবার যুদ্ধ ও সংঘাতময় দেশে মানুষের আক্রান্ত, সংঘাত ও মৃত্যুর মুখোমুখি হওয়ার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে একটি ফেসবুক পোস্ট দিয়েছিল অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশাল।কেবল বাংলাদেশের নাম উল্লেখ করে দেওয়া ওই পোস্টে ছবি সংযুক্ত করা হয় সিরিয়ার একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত এলাকার।

নিজেদের অফিসিয়াল পেজ থেকে পোস্ট করে সকলকে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সদস্য হওয়ার আহ্বান জানায় প্রতিষ্ঠানটি। সেই পোস্টে যে ছবি ব্যবহার করা হয়েছে তা সিরিয়ার। ছবিটিতে একটি ধসে পড়া বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় দুই শিশুকে।

অন্যদিকে সেই পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘বাংলাদেশসহ বিশ্বজুড়ে অনেক সাধারণ মানুষ ভুল সময় ভুল স্থানে থাকার কারণে আক্রমণ, ভায়োলেন্স ও মৃত্যুর মুখে পড়ছে। যুদ্ধ ও সংঘর্ষের সময় আক্রান্তদের কথা প্রকাশের জন্য কাজ করে যাচ্ছি আমরা। না বলা গল্পগুলো জানাতে লাখো মানুষের এই আন্দোলনে আপনিও যোগদিন।’

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এই পোস্টে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বাংলাদেশিরা।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে দারুণ সক্রিয় ছিলো অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এসময় বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা থেকে শুরু করে আরো বেশ কিছু ইস্যুতে সোচ্চার ছিলো আন্তর্জাতিক মানবাধিকার প্রতিষ্ঠানটি।

২০১২ সাল থেকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে দারুণ সরব থাকা এই প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করার চেষ্টার অভিযোগ উত্থাপিত হয় ২০১৫ সালে।

যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি কার্যকর হবার পরও বাংলাদেশের ট্রাইব্যুনালের সক্ষমতা ও বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

সূত্র- আমার সংবাদ

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.