প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন আতিক-তাপস

(Last Updated On: February 2, 2020)

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এগিয়ে থাকা আওয়ামী লীগ মনোনীত দুই প্রার্থী মো. আতিকুল ইসলাম ও শেখ ফজলে নূর তাপস শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন। তারা রাত সাড়ে ৯টার দিকে গণভবনে যান বলে জানান প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব সারওয়ার সরকার।

তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পর রাত সোয়া ১০টার দিকে গণভবন ছাড়েন আতিক ও তাপস।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস। অন্যদিকে উত্তর সিটি করপোরেশনেও জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

দক্ষিণের নতুন মেয়র তাপস

নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন মেয়র পেলো ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এ সিটিতে মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে প্রায় দ্বিগুন ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন তিনি।

ঢাকা দক্ষিণের মোট এক হাজার ১৫০ কেন্দ্রের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস নৌকা প্রতীকে ৪২৪৫৯৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ইশরাক হোসেন ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ২৩৬৫১২ ভোট।

এছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী আবদুর রহমান হাতপাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২৬৫২৫ভোট।
জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন লাঙন প্রতীকে পেয়েছেন ৫৫৯৩ ভোট।

গণফ্রন্টের প্রার্থী আবদুস সামাদ সুজন মাছ প্রতীকে পেয়েছেন ১২৬৮৭ ভোট। বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আক্তারুজ্জামান ওর‌ফে আয়াতুল্লাহ ডাব  ২৪২১প্রতীকে পেয়েছেন; ন্যাশনাল পিপলস পার্টির  মো. বাহারা‌নে সুলতান বাহার আম প্রতীকে ৩১৫৫  ভোট পেয়ে‌ছেন।
এর আগে শনিবার সকাল ৮টায় ১ হাজার ১৫০টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ শুরু হয়। যা চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ডিএসসিসিতে মোট ভোটার সংখ্যা ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৩ জন। মোট ৭ লাখ ১১ হাজার ৪৮৮ ভোট বৈধ হয়েছে। যা মোট ভোটারের ২৯.০৭শতাংশ।

এ পর্যায়ে বিকেল ৫টার দিক থেকে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে স্থাপিত নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা মঞ্চে ফল ঘোষণা শুরু করেন ডিএসসিসি’র রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল বাতেন।

এ সময় আব্দুল বাতেন বলেন, এ সিটিতে কোনো ভোটকেন্দ্রে ভোট স্থগিত হয়নি। এটি ইতিহাসে প্রথম। ট্যাবের মাধ্যমে অনলাইনে ভোটের ফলাফল আসছে। ২৩ হাজার ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তা ভোটগ্রহণে সহায়তা করেছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে ভোটগ্রহণ শুরুর পর থেকেই বিএনপি প্রার্থীদের অভিযোগ, সাংবাদিকদের ওপর হামলা, ইভিএম বিভ্রাট, এজেন্ট ঢুকতে না দেওয়া, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

অন্যদিকে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাজধানীতে হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

ফের ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলাম।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেম শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত ২টা ৪০ মিনিটে তাকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন।

আতিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীকে ৪ লাখ ৪৭ হাজার ২১১ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তিনি ধানের শীষ প্রতীকে ২ লাখ ৬৪ হাজার ১৬১টি ভোট পেয়েছেন।

এ নির্বাচনে ভোট পড়েছে ২৫ দশমিক ৩০ শতাংশ।

ডিএনসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে ছয় প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের শেখ মো. ফজলে বারী মাসউদ হাত পাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২৮ হাজার ২০০ ভোট , প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টি-পিডিপির শাহীন খান বাঘ প্রতীকে ২ হাজার ১১১ ভোট পেয়েছেন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির-এনপিপির মো. আনিসুর রহমান দেওয়ান আম প্রতীকে পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৫৩ ভোট ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির আহম্মেদ সাজ্জাদুল হক কাস্তে প্রতীকে পেয়েছেন ১৫ হাজার ১২২ ভোট।

এ সিটিতে মোট ভোটার রয়েছেন ৩০ লাখ ১২ হাজার ৫০৯ জন। ভোট পড়েছে ৭লাখ ৬২ হাজার ১৮৮ টি। অর্থাৎ প্রদত্ত ভোটের হার ২৫ দশমিক ৩০ শতাংশ।

এ সিটি নির্বাচনে বাতিল ভোটের সংখ্যা ১ হাজার ৫৩০টি।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিলে এ সিটির নির্বাচনে ব্যবসায়ী নেতা আনিসুল হক মেয়র পদে জয়লাভ করেছিলেন। তার মৃত্যুতে আসনটি শূণ্য হলে উপ-নির্বাচনের মাধ্যমে জয় পেয়ে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে ১ বছরেরও কম সময়ের জন্য নগরপিতা হন আতিক।

মেয়াদ পূর্তির আগের ছয় মাসের মধ্যে ভোট গ্রহণের বাধ্যবাধকতা থাকায় পদত্যাগ করেই তাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়।

গত ২২ এপ্রিল নির্বাচন তফসিল দিয়ে ৩০ জানুয়ারি ভোটের তারিখ দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। তবে সরস্বতি পূজার্থীদের দাবির মুখে একদিন দু’দিন পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি ভোট আয়োজন করে সংস্থাটি।

এবার প্রথমবারের মতো বিভক্ত ঢাকার দুই সিটিতে একযোগে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে ভোটগ্রহণ শুরুর পর থেকেই বিএনপি প্রার্থীদের অভিযোগ, সাংবাদিকদের ওপর হামলা, ইভিএম বিভ্রাট, এজেন্ট ঢুকতে না দেওয়া, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

অন্যদিকে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাজধানীতে হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

 

Print Friendly, PDF & Email

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.