বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:১১ পূর্বাহ্ন

আফজল খান কুমিল্লার এক কীর্তিমান সাহসী নেতার নাম

এস এন ইউসুফ
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৬৩ বার
– এস এন ইউসুফ ।। আপনাকে শেষবারের মতো স্পর্শ করেছিলাম আপনি যখন কুমিল্লা সিডিপ্যাথ হসপিটালে ভর্তি ছিলেন। আপনার শরীর খারাপের দিকে যখন যাচ্ছিল মাননীয় এমপি সীমা আপা, ইমরান ভাই, নোমান ভাই, আরমান ভাই সহ সবাই মিলে আমরা সিদ্ধান্ত নেই দ্রুত ঢাকায় নিতে হবে। সেইদিনই শেষবারের মতো কুমিল্লা থেকে। আপনি শুয়ে ছিলেন নিরবে। বার বার এয়ার এ্যাম্বুলেন্সের পাইলটের সাথে কথা বলে টাইমও সেট করে নিয়ে সীমা আপাকে জানালাম।
ঢাকা থেকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্স এলো। সিডিপ্যাথ থেকে কান্দিরপাড় হয়ে ঈদগাহ মাঠের দিকে যতই আপনাকে বহকরা এ্যাম্বুলেন্সটি এগিয়ে যাচ্ছিল।পুরো শহর তখন থমকে দাঁড়িয়ে ছিলো। ঈদগাহ মাঠে পৌঁছে আপনাকে এ্যাম্বুলেন্স থেকে স্ট্রেটচারে করে নামিয়ে হেলিকপ্টারের দিকে যতই যাচ্ছিলাম আমাদের সকলের মুখ মলিন। আপনাকে সবাই মিলে ধরে হেলিকপ্টারে তুলতে যখন সবাই ব্যস্ত। তখন আপনি যেন আপনার এই প্রাণের শহর কুমিল্লা ছেড়ে যেতে চাচ্ছিলেন না।
জানেন আংকেল আপনাকে যখন তুলে দিতে যাই তখন আপনার ব্যক্তিত্বের ভার আমরা সইতে পারছিলাম না। আমার হাতে প্রচন্ড আঘাত পাই তবে আমার নিকট সেই আঘাত আঘাতই মনে হয়নি। কারণ আপনার অসাধারণ সেই হাসি মাখা মুখ আমাকে পরম মমতায় সব কিছু ভুলিয়ে দিয়েছিলো।পরবর্তীতে আপনি ভালো হয়ে উঠছিলেন প্রতিদিন খবর নিতাম মাঝে মাঝে ছুটে যেতাম ইউনাইটেড হসপিটালে ডাক্তারদের কড়া নির্দেশনার কারণে আমরা কেউ ভিতরে প্রবেশ করতে পারতাম না। সবার আকাঙ্খা ছিলো আপনি সুস্থ্য হয়ে উঠেন পরে কাছে যেতে পারবো দেখতে পারবো। অথচ বিধির বিধান তিনি আপনাকে নিয়ে গেলেন আমাদের থেকে। এই মায়ার বাঁধনছিন্ন করে।
আংকেল আপনার মৃত্যু সংবাদ যেদিন কুমিল্লা শহরে পৌঁছে, সেদিন কুমিল্লার আকাশ কালো মেঘে ঢেকে গিয়েছিলো। সন্ধ্যা নামতেই আপনি এলেন প্রাণহীন দেহে আপনার সেই আপনালয় ঠাকুর পাড়ায়। আপনাকে বহনকরা লাশবাহী গাড়িটি শহরে ঢুকতেই শোকাহত মানুষের চিৎকারে শহরের বাতাস ভারি হয়েছিল। হারানোর বেদনা আর অশ্রুশিক্ত নয়নে আপনাকে শেষ বারের মতো দেখতে ভীর লক্ষ লক্ষ মানুষ ভীড় করে আপনার ঠাকুর পাড়ার বাড়িতে। মানুষের ঢল নেমেছিলো আপনার জানাযার নামাজে। স্মরণ কালের বড় নামাজে জানাযা দেখেছিলো কুমিল্লাবাসী। অধ্যক্ষ আফজল খান কুমিল্লার মুকুটহীন সম্রাট তা কুমিল্লার মানুষের উপস্থিতি প্রমাণ করে দেশবাসীকে জানিয়ে দিয়েছিলো সেদিন।
আংকেল, আমার এই ক্ষুদ্র জীবনে আপনার মতো বিশাল হৃদয়ের সাহসী একজন রাজনৈতিক নেতার সান্নিধ্য আমার জিবনের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি। কারণ আপনার কাছে থেকে অনেক অনেক অনেক কিছু শিখেছি। আমি দেখেছি অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপনার সাহসী উচ্চারণ। আমি রাজনীতিতে অনেক নেতাকেই কাছ থেকে দেখেছি, আপনার মতো এমন হৃদয় খোলা মানুষ আমি দেখিনি। আপনি মনের ভিতর কোন হিংসা কিংবা অহংকার লালন করতেন না। যাকে যা বলতেন সামনেই বলতেন, যাকে যা দিতেন গোপনেই দিতেন কোনদিন প্রচার করতেন না। কারো অনুপুস্থিতে কারো বিরুদ্ধে সমালোচনা করতেন না। আপনার ভিতর এমন চরিত্র কোনদিন আমি দেখিনি। যা বর্তমান সময় রাজনীতিতে বিরল। আপনাকে নিয়ে আমার অনেক লেখা… যা পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায় লিখেও সমাপ্তি টানা সম্ভব হবেনা। কারণ বর্ণাঢ্যজীবনের অধিকারীদের বর্ণনা লিখে শেষ করা যায়না।
আজ ১ বছর হয়েছে আপনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কেমন আছেন জানিনা, তবে আমার বিশ্বাস আপনার অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার দীপ্ত প্রদীপ শিখায় আপনার কবরকে নিশ্চয় আলোকিত করে রেখেছে। আপনি ভালো আছেন বলে বিশ্বাস করি, কারণ আপনি অনেক অসহায় লোককে আপনার অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে চাকুরী দিয়ে তাদের মুখে খাবার তুলে দিয়েছেন। তাদের দোয়া নিশ্চয় সদকায়ে জারিয়া হিসেবে আপনার আমলনামায় পৌঁছছে প্রতিনিয়ত।
আজ আপনার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে আন্তরের অন্তঃস্থল থেকে শ্রদ্ধাসহ দোয়া। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যেন আপনাকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করেন। আমিন ॥

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2022 DeshPriyo News
Designed By SSD Networks Limited
error: Content is protected !!